দেশ 

বিদ্যাসাগর কলেজে হামলা ও বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার জন্য তৃণমূলকেই দায়ী করলেন অমিত শাহ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : অমিত শাহ রোডশো কে কেন্দ্র করে অশান্তি থেকে বিদ্যাসাগর কলেজে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙাকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি চাপানউতোর তুঙ্গে পৌঁছেছে। আর বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙাকে কেন্দ্র করে বিজেপি দল যথেষ্ট অস্বস্তিতে । কারণ তাদের মিছিল থেকেই বিজেপি সমর্থকরা বিদ্যাসাগর কলেজে হামলা করে ।

যা ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ কিছু ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে মারমুখী বিজেপি কর্মী অশ্রাব্য ভাষায় কথাবার্তা বলে বিদ্যাসাগর কলেজে হামলা চালাচ্ছেন। পুলিশ অমিত শাহ সহ বেশ কয়েক জন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআরও করেছে পুলিশ । যদিও বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে তৃণমূলই।

গোটা ঘটনায় বিজেপি শিবির যে কিছুটা অস্বস্তিতে পড়েছে তা বলাই বাহল্য। এতে রাজ্যের ভোটে সমূহ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা আছে । তাই ড্যামেজ কন্ট্রোল করার জন্য অমিত শাহ নিজে সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে সমস্ত অভিযোগ খণ্ডন করলেন । তিনি স্পষ্ট বললেন বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার জন্য তৃণমূল দায়ী।

শাহের দাবি, সহানুভূতি আদায়ের জন্য ইচ্ছাকৃত ভাবে এই কাণ্ড ঘটিয়েছে তৃণমূল। সাংবাদিক সম্মেলনে শাহ বলেন, “বাংলায় হিংসাত্মক কাণ্ডকারখানার জন্য দায়ী তৃণমূল, বিজেপি নয়। আর তৃণমূল কর্মীরা নিজেরা বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে এখন বিজেপির ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে। এই ঘটনার পেছনে বিজেপি কেন দায়ী নয়, সেটাও যুক্তি দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন শাহ তাঁর দাবি, “ছ’দফা নির্বাচন হয়ে গেল। গোটা দেশে আরও কোথাও হিংসার ঘটনা ঘটল না, শুধু বাংলাতেই হচ্ছে। এটাই প্রমাণ করছে এই ঘটনার পেছনে দায়ী তৃণমূলই।”

মঙ্গলবার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন  কমিশনের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছেন শাহ। তাঁর দাবি, কমিশন হিংসা রোধে কোনো রকম পদক্ষেপ নিচ্ছে না। পাশাপাশি তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হলেও তিনি যে ভয় পান না, সেটাও জানিয়ে দিয়েছেন শাহ।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবারের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অমিত শাহের বিরুদ্ধেও এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এখনও পর্যন্ত মোট ১৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment