কলকাতা 

শুক্রবার রাতেই কলকাতায় আছড়ে পড়তে চলেছে সুপার সাইক্লোন ‘ ফণী ‘ ; রবিবারে কাটবে দূর্যোগ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ওড়িশার সঙ্গে বাংলাতেও ধেয়ে আসছে সাইক্লোনফণী শুক্রবার গভীর রাতেই বাংলায় আছড়ে পড়তে পারে ভয়াল এই ঘূর্ণিঝড়। ঝড়ের সর্বোচ্চ গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১১৫ কিমি। এমনটাই জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বৃহস্পতিবার আলিপুর আবহাওয়া দফতরের ডেপুটি ডিরেক্টর সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বাংলায় ঘূর্ণিঝড় আসছে। ওড়িশার মধ্য দিয়ে বাংলায় ঢুকবে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। কাল মাঝরাত থেকে ভোরের মধ্যে আছড়ে পড়তে পারে ফণী। তারিখ সকালে দুর্বল হবে ঘূর্ণিঝড়। এরপর সেদিন সন্ধে থেকে রাতের মধ্যে বাংলাদেশে যাবে ফণী’’ অর্থাৎ প্রায় ২৪ ঘণ্টা বাংলায় অবস্থান করবে ফণী।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, রাজ্যে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে ভেঙে পড়তে পাড়ে গাছ, কাঁচা বাড়ি, বিদ্যুতের খুঁটি। কলকাতায় ঝড়ের দাপটে গাছ ভেঙে পড়তে পারে। তাছাড়া কলকাতায় বৃষ্টির জেরে জল জমতে পারে।

ইতিমধ্যেই মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। দিঘা, মন্দারমণি, বকখালি, শঙ্করপুর, ফ্রেজারগঞ্জ এলাকায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি হাওড়া, মেদিনীপুরে ফেরি চলাচলের উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। হাওয়া অফিসের তরফে রেল পরিবহণ বিভাগকে ফণীর অবস্থান সম্পর্কে জানানো হয়েছে। সেইমতো পদক্ষেপ করার কথা বলা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের জেরে হাইওয়ে এলাকায় দৃশ্যমানতা কম থাকতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

শুক্রবার কলকাতা, দুই মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, দুই বর্ধমান, দুই ২৪ পরগনা, পুরুলিয়া বাঁকুড়া, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, ঝাড়গ্রামে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস। কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। শনিবার ওই জেলায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। মে উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। কোথাও কোথাও ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, তারিখের পর থেকে দুর্যোগ কাটবে বাংলায়।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment