জেলা 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো আরএসএসের সভায় গিয়ে আরএসএস কর্মীদের ‘ দেশপ্রেমিক ‘ বলেছিলেন ; উনি তলে তলে আর এসএস ও বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন ; মুর্শিদাবাদের মুসলিমদের মধ্যে কংগ্রেস সম্পর্কে খারাপ ধারনা তৈরি করে বিজেপির সুবিধা করতেই মমতা এই ধরনের কথা বলছেন দাবি অধীরের

শেয়ার করুন
  • 43
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরি : অধীর গড়ে দাঁড়িয়ে মুর্শিদাবাদ, বহরমপুর এবং জঙ্গিপুরে কংগ্রেসের হয়ে কাজ করছে আরএসএস বিতর্কিত মন্তব্য আজ ফের করেন তৃণমূল নেত্রী । তিনি বলেন , রাম, বাম ও কংগ্রেস এক হয়েছে । ফলে বিজেপিকে হঠাতে হলে এদেরকে ভোট দেওয়া উচিত নয় । সোমবার বেলডাঙ্গার নির্বাচনী প্রচার সভা থেকে অধীর চৌধুরিকে হারানোর ডাক দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

এই বক্তব্যের কিছুক্ষণ পরেই বহরমপুরের বিদায়ী সাংসদ ও কংগ্রেস প্রার্থী অধীর রঞ্জন চৌধুরি বলেন, উনি তো আরএসএসের কেন্দ্রীয় সভায় আমন্ত্রিত হয়ে গিয়েছিলেন । সেখানে গিয়ে বলেছিলেন , আরএসএস কর্মীরা দেশপ্রেমিক । তাহলে আপনারা ভাবুন বিজেপি ও আরএসএসের সঙ্গে কার গভীর সম্পর্ক আছে । তিনি আরও বলেন , খুব পরিকল্পিতভাবে বিজেপিকে সাহায্য করার জন্য তৃণমূল নেত্রী মুর্শিদাবাদের মত সংখ্যালঘু প্রধান জেলায় এসে এই ধরনের মন্তব্য করে কংগ্রেস সম্পর্কে মুসলিমদের মনে বিরূপ ধারনার সৃষ্টি করতে চাইছেন । যাতে মুসলিমরা দ্বিধাহীনতায় ভুগে । আর এটাই চাইছে বিজেপি । পক্ষান্তরে বিজেপিকেই সাহায্য করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলে অধীর চৌধুরি মন্তব্য করেন ।

বহরমপুরের বিদায়ী সাংসদ অধীর চৌধুরি আরও বলেন , এতে খুব বেশি সুবিধা হবে না । মুর্শিদাবাদের মাটি আসলে কংগ্রেসের মাটি এখানে তৃণমূল নেত্রী যতই ফাটল ধরানোর চেষ্টা করুক না তাতে ফাটল ধরবে না । এটাই বাস্তব সত্য । অন্যদিকে জঙ্গীপুরের প্রাক্তন সাংসদ প্রণব মুখোপাধ্যায় সম্পর্কেও মুখ্যমন্ত্রী বিরূপ মন্তব্য করেন । তিনি বলেন ,‘‘আরএসএসের দফতরে গিয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ সেই আনুগত্যবোধ থেকেই কংগ্রেসকে সাহায্য করছে আরএসএস৷’’

এই প্রসঙ্গ টেনে প্রণব পুত্র অভিজিৎ মুখার্জি যিনি জঙ্গীপুর লোকসভা আসনের প্রার্থী তিনি বলেন, আমরা কেউ বাজপেয়ী মন্ত্রীসভার সদস্য ছিলাম না । উনি বিজেপির সঙ্গে এক সঙ্গে ঘর করেছেন । আরএসএস পরিচালিত সরকারের মন্ত্রী ছিলেন । বাংলার মানুষ সবটা জানেন । এসব বলে মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূলের কোনো লাভ হবে না । মুর্শিদাবাদ কংগ্রেসের গড় ছিল আগামী দিনে থাকবে ।

অন্যদিকে , রাজনৈতিক মহল মনে করছে , মমতা বহু চেষ্টা করেও মুর্শিদাবাদে তৃণমূলকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি । অধীর চৌধুরি মুর্শিদাবাদের মাটিতে গিয়ে রাজনীতি করার পরেই প্রতিদিনই তৃণমূল দল ভাঙছে আর এতেই অশনী সংকেত দেখতে পাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । তাই মুসলিম প্রধান জেলায় এখন আরএসএস-কংগ্রেস যোগ নিয়ে সরব হয়ে সংখ্যালঘু ভোট ভাঙানোর খেলা শুরু করেছেন তিনি । তাতেও কোনো লাভ হবে না বলে মনে করছেন প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক সরদার আমজাদ আলী । তিনি বললেন , অধীর তো মমতাকে তাঁর বিরুদ্ধে প্রার্থী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ছিলেন । তিনি  বড় মাপের নেত্রী, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আবার প্রধানমন্ত্রী হবার অন্যতম দাবিদার তাহলে অধীরের বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়ে তাকে হারাতে পারতেন । অধীরের দেওয়া চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারতেন । তিনিও তো আরএসএসের সাহায্য  নিয়ে অধীরকে হারাতে পারতেন । তা তিনি করলেন না কেন ? আসলে অধীরকে হারাতে পারবে না বুঝেই এসব কথা বলছেন মমতা ।


শেয়ার করুন
  • 43
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment