জেলা 

“শুধরে যান, না হলে ভোট দিতে দেব না। টিএমসি পার্টি অফিসে তালা মেরে দেওয়া হবে। তালা মারা হবে টিএমসি কর্মীদের বাড়িতেও” শাসক দলকে হুঁশিয়ারি দিলীপের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাত পেহালেই প্রথম দফা ভোট। আর সেই ভোটের আগেই অন্যান্য জায়গাগুলিতে চলছে জোর কদমে ভোট প্রচার । আর এই প্রচারকে কেন্দ্র করে যুযুধান রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে চলছে একে অপরকে আক্রমণ করা । বুধবার নিজের এলাকা দাঁতনে প্রচারে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তৃণমুল কংগ্রেস ও পুলিশকে সরাসরি আক্রমণ করেন । তিনি বলেন, “শুধরে যান, না হলে ভোট দিতে দেব না। টিএমসি পার্টি অফিসে তালা মেরে দেওয়া হবে। তালা মারা হবে টিএমসি কর্মীদের বাড়িতেও।”

মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রে তাঁর বিরুদ্ধে মানস ভুঁইঞাকে প্রার্থী করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপি রাজ্য সভাপতির দাবি, “মানস ভুঁইঞা জামাকাপড় পাল্টানোর মতো পার্টি পাল্টান। এবার মানুষ তাঁকে প্যাক করে দেবে।”

প্রসঙ্গত, এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনে মানস ভুঁইঞার গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে গিয়েছে। “যে পঞ্চায়েতে জিততে পারে না, সে এমপি জেতার স্বপ্ন দেখছে”, বলেও এদিন কটাক্ষ করতে শোনা যায় বিজেপি রাজ্য সভাপতিকে।

রোড শো থেকে এদিন পুলিসকেও ‘দেখে নেওয়ার’ হুমকি দেন দিলীপ ঘোষ। রোড শো-এ তাঁকে বলতে শোনা যায়, “পঞ্চায়েত নির্বাচনে যে পুলিস কেস দিয়েছে। তাদেরও দেখে নেওয়া হবে।” উল্লেখ্য, সম্প্রতি বেশকিছু পুলিস কর্তাকে বদলি করেছে নির্বাচন কমিশন। যে তালিকায় নবতম সংযোজন ভোটের একদিন আগে কোচবিহারের পুলিস সুপারকে বদলি করা।

মূলত বিজেপির অভিযোগেই কমিশন বদলি করে কোচবিহারের এসপিকে। সেই প্রসঙ্গকে উল্লেখ করে আজ ফের দিলীপ ঘোষ হুঁশিয়ারি দেন, “রোজ একটা করে পুলিসের উইকেট পড়ছে। ভোটের আগে কোচবিহারের এসপিকে আনন্দ করতে না দিয়ে নির্বাচন কমিশন গ্যারেজ করে দিয়েছে। পুলিসের দাদাগিরি চলবে না। তাহলে প্যাক করে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment