কলকাতা 

ভাগাড় কান্ডের জের, পুর বাজারগুলিতে কাটা মুরগির মাংস বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা কলকাতা পুরসভার

শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেখ মিজানুর রহমানঃ

ভাগাড় কান্ডে এবার কঠোর হচ্ছে কলকাতা পুরসভা। শহরে ৪৬ টি পুর বাজারেই এবার কাটা মুরগির মাংস বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুরসভার বাজার বিভাগ। আজ একথা জানিয়েছেন, কলকাতা পুরসভার বাজার বিভাগেরর মেয়র পারিষদ আমিরুদ্দিন (ববি)। তিনি জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে পুরসভার তরফে নোটিশ ইস্যু করা হয়েছে। আগামীকাল থেকেই শহরের প্রত্যেকটি পুর বাজারে এই নোটিশ টাঙিয়ে় দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে বাজারের মাংস  বিক্রেতাদের মৌখিকভাবেও কাটা মাংস বিক্রি বন্ধ করতে কঠোরভাবে নিষেধ করা হবে। পুর নির্দেশকে অগ্রাহ্য করে কোন মাংস বিক্রেতা কাটা মুরগীর মাংস বিক্রি করলে সংশ্লিষ্ট মাংস  বিক্রেতার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁঁশিয়ারি দিয়েছেন আমিরুদ্দিন। যতদিন না তদন্ত শেষ হচ্ছে, ততদিন এই নির্দেশিকা চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তাহলে যাদের স্বল্প পরিমাণে মাংসের প্রয়োজন হবে, তারা কি করবে? জবাবে মেয়র পারিষদ (বাজার) জানিয়েছেন, প্রয়োজন হলেও ওই ব্যক্তিকে গোটা মুরগিই কিনে নিয়ে যেতে হবে। প্রয়োজনাতিরিক্ত মাংস ওই ব্যক্তি নিজের বাড়ির ফ্রিজে রাখতে পারেন।

প্রসঙ্গত, শহরের বিভিন্নপ্রান্তের হোটেলগুলিতে ভাগাড়ের পচা মাংস সরবরাহ করা হয় বলে কিছুদিন আগেই জানতে পারে পুলিশ। কলকাতা ও বজবজ থানার পুলিশ যৌথভাবে  তদন্ত চালিয়ে রাজাবাজারের একটি গোডাউন থেকে ২০ টন পচা মাংস উদ্ধার করেছিল। পরে ঘটনার মূলপান্ডা বিশ্বনাথ ঘড়ুই ওরফে বিশুকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেই নানান চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। পুলিশ জানতে পারে এই গোডাউনের মাংসই সররবরাহ করা হত নিউমার্কেট সহ বিভিন্ন বাজারে। এর পরেই নড়ে চড়ে বসে পুরসভা। শহরের বিভিন্নপ্রান্তে অভিযান চালিয়ে সংগ্রহ করা হয়েছে মাংসের নমুনা। সেগুলি পরীক্ষার জন্য ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্ট পাওয়ার পুরসভার বাজার বিভাগের মেয়র পারিষদের এই সিদ্ধান্ত নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়।

 


শেয়ার করুন
  • 11
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment