জেলা 

বাংলায় বুয়া-ভাতিজা জুটি রাজ্যকে গুন্ডা, তোলাবাজদের গড় বানাতে উঠেপড়ে লেগেছেন : মোদী

শেয়ার করুন
  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কোচবিহারের রাসমেলা ময়দান থেকে  তৃণমূলের ‘মা, মাটি, মানুষ’ স্লোগানকে তীব্র কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র  মোদী৷  তিনি বলেন , পশ্চিমবঙ্গের বুয়া-ভাতিজা জুটি রাজ্যকে গুন্ডা, তোলাবাজদের গড় বানাতে উঠেপড়ে লেগেছেন। তিনি দাবি করলেন, জোড়াফুলের স্লোগান এখন শুধু শব্দের মধ্যেই সীমাবদ্ধ৷ বাস্তবে তার রূপ অন্য৷ মা, মাটি, মানুষের ব্যাখ্যা তৃণমূলের আমলে বদলে কী হয়েছে৷

প্রধানমন্ত্রী রবিবার দ্বিতীয়বারের জন্য নির্বাচনী জনসভা করেন৷ রাসমেলা মাঠে মোদীর সভা ঘিরে ছিল মানুষের উন্মাদনা৷ সেই সভাতেই মোদী দাবি করেন, দেশকে টুকরো করার পথে যারা এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী৷ অনুপ্রবেশকারীদের সুবিধা করে দেওয়া হচ্ছে৷ গণতন্ত্রে হিংসার বাতাবরণ কায়েম করেছে মমতার সরকার৷

রাসমেলা মাঠে প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেন, ‘‘মা, মাটি, মানুষ মুখে বললেও দিদি এই সব শব্দের আসল মাহাত্ম্য মনে রাখেননি৷ উল্টে এই শব্দের অপমান করেছেন৷’’ মোদী বলেন, ‘‘দেশকে যারা টুকরো করতে চাইছে দিদি তাদের পক্ষে রয়েছেন৷ ফলে পরিষ্কার তৃণমূল মা’কে ভুলে গিয়েছে রাজনৈতিক স্বার্থে৷ অনুপ্রবেশকারীদের মদত দিচ্ছে মমতা সরকার৷ দিদির এই পদক্ষেপ মানুষ’কে অপমানের সামিল৷ গত বেশ কয়েকটি ভোটে রাজ্যে হিংসার ঘটনা ঘটেছে৷ যা মানুষের ক্ষতি করেছে৷’’

কাশ্মীরের জন্য পৃথক প্রধানমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতির দাবি জানিয়ে নয়া বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা৷ এইদিন জম্মু-কাশ্মীরের এই দাবি নিয়েও কোচবিহারে সরব ছিলেন নরেন্দ্র মোদী৷ এনসির বিরোধী জোটে থাকায় ‘পৃথক প্রধানমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতি’র দাবি নিয়েও তৃণমূল নেত্রীর সমালোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী৷

তিনি বলেন, ‘‘যারা এই ধরণের দাবি করছে দিদি তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে৷ যার পরিণতি ভয়ঙ্কর৷’’ লোকসভার বৈতরণী পারে বাংলাকে পাখির চোখ করেছে বিজেপি৷ এদিন কোচবিহারের সভায় ‘বুয়া ভাতিজা’ জোট বলেও রাজ্যের শাসক দলের সমালোচনা করেন৷ মোদী বলেন, ‘‘পিসি-ভাইপো জোড়ি রাজ্যকে অনুপ্রবেশকারীদের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছে৷’’ প্রধানমন্ত্রীর কথায় বাংলার সমস্যার অন্যতম কারণ অনুপ্রবেশ৷ ক্ষমতায় এলে অনুপ্রবেশকারীদের রেহাই মিলবে না বলে এদিন ফের হুঁশিয়ারি দেন তিনি৷ন প্রধানমন্ত্রী৷

বিরোধী জোটের অন্যতম মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মোদীকে ক্ষমতা চ্যূত করতে মরিয়া তিনি৷ তৃণমূল সুপ্রিমোর মুখে প্রায়ই শোনা যায়, ‘‘মোদী হঠাও দেশ বাঁচাও৷’’ যাকে কটাক্ষ করে মোদীর জবাব, ‘‘বিজেপির প্রতি মানুষের সমর্থন বাড়ছে৷ যা দিদির রাগের কারণ৷ দিদি নির্বাচন কমিশনের উপর রাগ দেখাচ্ছে৷ আয়নায় নিজের ভবিষ্যৎ দেখতে পাচ্ছেন উনি৷ তাই এত সহজে মোদীকে হঠানো যাবে না৷’

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 26
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment