কলকাতা 

শুল্ক দফতরের কাজে বাধা দেওয়া হলে সাত দিন পর এফআইআর কেন ? প্রশ্ন তৃণমূলের যুব নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : গতকালই কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয় সাংসদ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর করেছে শুল্ক দফতর । যদিও ঘটনাটি প্রায় এক সপ্তাহ আগেই ঘটেছে বলে জানা গেছে । কিন্ত কেন এত দেরিতে এফআইআর করা হল তা নিয়ে অবশ্যই প্রশ্ন তোলা যেতে পারে । এই খবর প্রকাশের পর লোকসভা নির্বাচনের আগে অস্বস্তিতে পড়ে যায় তৃণমূল ।

এই ইস্যুতে রবিবার সাংবাদিক সম্মেলনে অভিষেক ওই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ চান। তিনি বলেন, ‘সাহস থাকলে, সিসিটিভি ফুটেজ এনে আমাকে দেখান।’ তিনি জানান, ১৫ তারিখ রাতে ১২টা ৪০ মিনিটে কলকাতা বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তাঁর স্ত্রী রুজিরা। ১টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত তিনি ছিলেন বিমানবন্দরে। ওই সময়ের মধ্যেকার ফুটেজ দেখতে চেয়েছেন অভিষেক। তিনি বলেন, ‘২ কেজি কেন, ২ গ্রাম সোনা পাচার করা হচ্ছিল, ফুটেজে দেখা পারলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেব।’

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছিল যে থাইল্যান্ড থেকে ২ কেজি সোনা নিয়ে ফিরছিলেন অভিষেকের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়। কাস্টমসের চেকিং-এ বাধা দেওয়ার আভিযোগে এফআইআর করে শুল্ক দফতর। শনিবার হয় সেই এফআইআর। এই ইস্যু নিয়েই এদিন কাস্টমসের বিরুদ্ধে একাধিক প্রশ্ন তোলেন অভিষেক।

অভিষেক জানান, এফআইআরে লেখা আছে, প্রোফাইলের ভিত্তিতে চিহ্নত করা হয় রুজিরা ও তাঁর সঙ্গীকে। অভিষেক প্রশ্ন তুলেছেন, ‘প্রোফাইল’ শব্দের মানে কি? তাহলে কি তাঁর স্ত্রী বলেই এই অভিযোগ? প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন গেরুয়া শিবিরের দিকেও। বলেন, ‘২ কেজি সোনা যদি আনা হচ্ছিল, তাহলে তা বাজেয়াপ্ত করা হল না কেন? চৌকিদার কী ঘুমোচ্ছিলেন?’

শুল্ক দফতরের অভিযোগ, তাদের কাজে বাধা দেওয়া হয়েছে ও হ্যারাস করা হয়েছে। এর জবাবে অভিষেক বলেন, কাজে বাধা দেওয়া হলে কেন সিআইএসএফ-কে ডাকা হল না। এফআইআর করতে সাতদিন লাগল কেন, সেই প্রশ্নও তুলেছেন সাংসদ।


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment