কলকাতা 

এসএসসির অনশনকারী চাকরিপ্রার্থীদের সমস্যার সমাধানে বিশেষ কমিটি গঠন করছে শিক্ষা দফতর , অনশন প্রত্যাহারের অনুরোধ শিক্ষামন্ত্রীর ; “ সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে ” শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পর অনশনকারীদের দাবি

শেয়ার করুন
  • 178
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মোয়ো রোডে অনশনকারী এসএসসির চাকরিপ্রার্থীদের অভিযোগ খতিয়ে দেখার জন্য বিশেষ কমিটি গঠন করা হবে বলে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন।

আজ বিকাশভবনে অনশনকারীদের এক প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী। বৈঠকের পর তিনি বলেন, “রাজ্য সরকার অনশনকারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল ও মানবিক। তাঁদের অনশন প্রত্যাহারের অনুরোধ জানাচ্ছি।” এসএসসি নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “নিয়ম মেনে নিয়োগ হয়েছে। কোনও অনিয়ম হয়নি। ওয়েটিং লিস্টে কখনও প্যানেল হতে পারে না। ” শিক্ষামন্ত্রী প্রশ্ন করেন, “অনিয়ম হলে কেনও সবাই অনশন করছেন না?”

পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রীর দাবি, চাকরিপ্রার্থীদের ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। তাঁর কথায়, “সবাই যোগ্য প্রার্থী নন। তাঁদের সবাইকে যোগ্য প্রার্থী করার মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে অনশন করানো হচ্ছে। অসহায় চাকরিপ্রার্থীদের ভুল বোঝানো হচ্ছে।”

মোয়ো রোডে এসএসসির চাকরি প্রার্থীরা প্রায় ২২ দিন অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে । ইতিমধ্যে ৭০ জন অসুস্থ হয়ে পড়েছে । এই আন্দোলনকে ঘিরে রাজ্যের বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে সাড়া পড়েছে । ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজন বুদ্ধিজীবী অনশন মঞ্চে এসেছেন । বামপন্থী বুদ্ধিজীবী বলে পরিচিত কবি মান্দাকান্ত সেনও আজ অনশনে সামিল হন । এই পরিস্থিতি ভোটের মুখে বেশ খানিকটা বেকায়দায় পড়ে যায় শাসক দল । তাই বাধ্য হয়েই বিকাশ ভবনে শিক্ষামন্ত্রী আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠক করেন । সেই বৈঠকে সমস্যার সমাধানের জন্য পাঁচজনের কমিটি গঠনের কথা বলা হয় । একইসঙ্গে অনশন প্রত্যাহার করারও অনুরোধ করেন শিক্ষামন্ত্রী ।

এদিকে অনশনকারীদের পক্ষে হাফিজুল গাজী জানিয়েছেন ,“শিক্ষাসচিব মণীশ জৈনের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির কাছে আমাদের দাবিদাওয়া লিখিতভাবে তুলে ধরা হবে। সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে।”

শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষ করে হাফিজুল গাজ়ি বলেন, “প্রায় ঘণ্টাদেড়েক আলোচনা হয়েছে। তা কিছুটা ফলপ্রসূ হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী আমাদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।”

পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রী আন্দোলনকারীদের আশ্বাস দিয়ে বলেন, “তোমাদের কিছু বলার থাকলে মণীশ জৈনের কাছে তা লিখিতভাবে দেওয়া হোক। ১৫ দিনের মধ্যে উত্তর দেওয়া হবে। মণীশ জৈনের নেতৃত্বে পাঁচজনের কমিটি সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখবে।”

তারপর অনশনকারীদের পক্ষ থেকে শিক্ষামন্ত্রীকে বলা হয় ,”সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সমস্যা সমাধানের উপর সবকিছু নির্ভর করছে।”


শেয়ার করুন
  • 178
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment