জেলা 

গঙ্গারামপুরে নির্বাচনী প্রচারে মদন মিত্র

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দলীয় সমাবেশে আগেই দেখা গিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্রকে। এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীদের হয়ে প্রচারে বেরিয়ে পড়লেন প্রাক্তন এই মন্ত্রী।

তৃণমূল নেতা মদন মিত্র প্রথমে দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরের উদয় অঞ্চলে একটি সভা এবং তারপরে চালুন অঞ্চলে একটি নির্বাচনী সভা করলেন। চালুন অঞ্চলে তৃণমূলের নির্বাচনী সভা থেকে মদন মিত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, ‘ পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকক লুঠ হয়ে গেল, নীরব মোদী টাকা নিয়ে চলে গেল। কিন্তু এমন ‘অপদার্থ’ প্রধানমন্ত্রী তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থাই নিতে পারলেন না। সেইসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন নীতিরও কড়া সমালোচনা করেন মদন মিত্র।

Advertisement

এদিনই রাজ্যে পরিবর্তন সম্পর্কে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, ‘রাজ্যের মানুষ চোর তাড়াতে গিয়ে ডাকাত ডেকে এনেছেন।’ মুকুুুল রায়ের সেই বক্তব্য তুলে ধরে মদন মিত্র বলেন, ‘ উনি ভাল বলতে পারবেন উনি কতখানি ডাকাতি করে নিয়ে গেছেন’। এদিন তৃণমূল নেতা মদন মিত্র জানান খেলোয়াড়দের চাকরিতে কোটা চালু করবার জন্য মমতা ব্যানার্জী চেষ্টা করছেন। বিজেপিকে উপহাস করে নির্বাচনী সভা মঞ্চ থেকে মদন মিত্র বলেন টাকা দিয়ে বিজেপি পতাকা লাগিয়ে নিয়েছে, আগামী ১৭ই মে নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর বিজেপির পতাকা খোলার লোক থাকবে না। এদিনও মদন মিত্রের গলায় শোনা গেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর অনুগত হয়ে থাকার ইচ্ছার কথা। তিনি বলেন মন্ত্রী হতে চাই না, সাংসদ হতে চাই না, শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-এর সাথে থাকতে চাই। তৃণমূল নেতা মদন মিত্র-র নির্বাচনী সভায় উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র, গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্র সহ তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

[contact-form][contact-field label=”Name” type=”name” required=”true” /][contact-field label=”Email” type=”email” required=”true” /][contact-field label=”Website” type=”url” /][contact-field label=”Message” type=”textarea” /][/contact-form]


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment