দেশ 

মন্ত্রী-বিধায়ক সহ ২৫ জন বিজেপি নেতার দলত্যাগ ; তৃণমূল ভাঙতে গিয়ে নিজেরাই ভাঙনের মুখে , কেন এমন পরিনতি মোদী-শাহ-র জানতে চান ? ক্লিক করুন !

শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মোদী-অমিত শাহদের সময়টা মনে হয় ভাল যাচ্ছে না , উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ , গুজরাট সহ বিজেপি শাসিত ত্রিপুরার ও দলের নেতারা কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন । তা দেখে আশংকিত হলেও চিন্তিত ছিলেন । কারণ এটা সামলানো যাবে । দু একটা চলে গেলে খুব ক্ষতি হবে না । কিন্ত এবার একসঙ্গে ২জন মন্ত্রী সহ ৬ বিধায়ক আর নেতা মিলিয়ে ২৫ জন বিজেপি নেতা দল ছেড়ে দিলেন । তৃণমূল ভাঙতে যারা চেষ্টা করে চলেছেন তাদের নিমিষে কোনো চেষ্টা না করেই ভেঙে যাচ্ছে দেখে অবশ্য বিপদ দেখতে পাচ্ছেন মোদী-অমিতরা । তাহলে স্বপ্ন ভঙ্গ হতে চলেছে ! কোথায় এমন ঘটনা ঘটল জানতে চান । সংবাদ সংস্থা খবর থেকে জানা যাচ্ছে , ঘটনাটি ঘটেছে অরুণাচল প্রদেশে। গত এক সপ্তাহে এতোগুলো নেতাকে হারিয়ে বেশ চাপে রাজ্য বিজেপি। ২৫ জনই বিজেপি থেকে নাম লিখিয়েছেন ন্যাশনাল পিপল্‌স পার্টিতে।

সমস্যার শুরু অরুণাচল বিধানসভার প্রার্থী তালিকা নিয়ে। এ বার লোকসভা ভোটের সঙ্গেই ভোট হচ্ছে ৬০ সদস্যের অরুণাচল বিধানসভায়। কিছুদিন আগেই তার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে বিজেপি। দেখা গিয়েছে সেই তালিকায় নাম নেই বিজেপির সাধারণ সম্পাদক জারপুম গামলিং-এর। এ ছাড়াও টিকিট পাননি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়াই এবং পর্যটন মন্ত্রী জারকার গামলিং। এ ছাড়াও একাধিক বিধায়ককে টিকিট দেওয়া হয়নি। এর পরেই ক্ষোভের শুরু

এই মন্ত্রী, বিধায়ক ছাড়াও আরও ১৯ জন দলীয় নেতা একযোগে নাম লিখিয়েছেন ন্যাশনাল পিপল্‌স পার্টিতে (এনপিপি)। যদি যে দলে তাঁরা নাম লিখিয়েছেন সেই এনপিপি মেঘালয়ে সরকার চালায় বিজেপির সমর্থনে। তবে অরুণাচলে বিজেপির থেকে দূরত্ব বজায় রেখে তাঁরা একা লড়বেন বলে জানিয়েছেন এনপিপির সাধারণ সম্পাদক থমাস সাংমা।

 


শেয়ার করুন
  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment