কলকাতা 

মেলালেন তিনি মেলালেন ; যুযুধান অর্জুন ও দীনেশের সর্ম্পক কোন শর্তে বন্ধুত্বে পরিণত করলেন মমতা জানতে চান ? ক্লিক করুন।

শেয়ার করুন
  • 49
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন । কিন্ত বিদায়ী সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদীকেই প্রার্থী করতে চান স্বয়ং দলনেত্রী । ক্ষোভ ছিল । বাজারে জনশ্রুতি ছিল অভিমানে অর্জুন গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে পারেন । শোনা যায় গেরুয়া শিবিরও তাঁকে ওই কেন্দ্রের প্রার্থী করার প্রস্তাব পাঠায় । আর লোভনীয় প্রস্তাবে খানিকটা বিব্রত হয়ে পড়েন অর্জুন সিং ।

বাজরে রটে যায় অর্জুন নাকি গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে যাচ্ছে । আর এই প্রেক্ষাপটেই  দুজনকে নবান্নে ডেকে মুখোমুখি বসিয়ে সমস্যার সমাধান করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলনেত্রীর সমাধান সূত্রও স্পষ্ট যদি দীনেশ ত্রিবেদী এই নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করে তাহলে বিধায়ক অর্জুন সিং এবার রাজ্যের মন্ত্রী হয়ে যাবেন । আর এই প্রস্তাবেই অভিমান ভেঙে দীনেশের পাশে অর্জুন সিং ।

উল্লেখ্য , ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে অর্জুন সিংহের সাংগঠনিক দক্ষতা প্রশ্নাতীত । সেই সাংগঠনিক দক্ষতার কারণেই অর্জুনের গুরুত্ব রয়েছে তৃণমূলে ।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা বলার পর অর্জুন সিংয়ের মান ভেঙেছে। তিনি জানিয়েছেন, দীনেশদাই প্রার্থী হবেন। আমি দীনেশদার হয়ে প্রচার করব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশকে বেদবাক্য মনে করে অর্জুন সিং লড়াই থেকে সরে এলেন।

বিশেষ সূত্রের খবর, ভাটপাড়ার বিধায়কের গুরুত্ব বাড়তে চলেছে। তাঁকে মন্ত্রী করা হতে পারে। বিধায়ক থেকে হতে চেয়েছিলেন সাংসদ। তিনি তার বদলে বিধায়ক থেকে মন্ত্রী হতে চলেছেন। তাই তিনি সাংসদ পদপ্রার্থী হওয়ার লড়াই থেকে সরে এসে দীনেশ ত্রিবেদীকে জেতাতে ময়দানে নামবেন তিনি।

 


শেয়ার করুন
  • 49
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment