কলকাতা 

বস্তিবাসীদের উন্নয়নের লক্ষ্যে ঠিকা টেনেন্ট আইনে পরিবর্তন আনছে রাজ্য ,এই পরিবর্তনে সাধারন মানুষের কী সুবিধা জানতে চান ? ক্লিক করুন ।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : অসাধু প্রোমোটারি রুখে বস্তিবাসীর উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজ্য সরকার হাওড়া ও কলকাতা পুর নিগম এলাকায় তথাকথিত জমিদারদের জমিতে বসবাসকারী ভাড়াটিয়াদের বাড়ি তৈরি করার নিয়মের কিছু পরিবর্তন করতে চলেছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পৌরহিত্যে আজ নবান্নে রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে এই আইন সংশোধন সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। বৈঠক শেষে পুরমন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম সাংবাদিকদের বলেন, আইন অনুযায়ী এতদিন তারা সেই জমিতে সর্বোচ্চ সাড়ে ন’মিটার উচ্চতা পর্যন্ত পাকাবাড়ি তৈরি করতে পারতেন।

সেই আইন পরিবর্তন করে এখন থেকে ঐ ভাড়াটিয়া বা ঠিকা টেনান্ট নিজের সামর্থ মত বহুতল তৈরি করতে পারবেন বলে আইনে সংস্থান রয়েছে। যারা বাড়ি তৈরি করতে পারবেন না তাদের সেখানে বাংলার বাড়ি প্রকল্পে ৩৮৫ বর্গফুটের বাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে। পাশাপাশি ঠিকা টেনান্ট ব্যাক্তিগতভাবে বা ভাড়াটিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে পুরনিগমের নির্মান আইন অনু্যায়ী বাড়ির উন্নয়ন ঘটাতে পারবেন। এজন্যে আইনের কোন অংশটিকে সংশোধন করে কি সুবিধা দেওয়া যায় তার জন্যে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য কলকাতা শহরে এই রকম প্রায় দু’হাজার ও হাওড়া পুরনিগম এলাকায় ৫১৭ একর জমি রয়েছে। এই আইন সংশোধন হলে কলকাতা, হাওড়া, আসানসোলের প্রায় ৫০ লক্ষ মানুষ উপকৃত হবেন বলে পুরমন্ত্রী জানিয়েছেন। এছাড়াও রাজ্যের উদ্বাস্তুবাসীদের ন্যূনতম পরিকাঠামো ও পরিষেবা দেওয়ার লক্ষ্যে  একটি সঠিক উদ্বাস্তু নীতি তৈরি করতে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র-র নেতৃত্বে একটি মন্ত্রীগোষ্ঠি গঠন করা হয়েছে বলে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন। উল্লেখ্য রাজ্যের ৯৪টি উদ্বাস্তু কলোনিতে ইতিমধ্যেই এই কাজ সম্পূর্ন হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment