কলকাতা 

২০১৪ তে আমার জেতাটা অপরাধ হয়ে গেছে , সব শিয়াল এক হয়ে বলছে সেলিমকে সংসদে যেতে দেওয়া যাবে না ; রায়গঞ্জ নিয়ে কংগ্রেসের অনড় অবস্থানে সেলিমের কড়া প্রতিক্রিয়া

শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ২০১৪ সালে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে সিপিএমের প্রার্থী হিসেবে সামান্য ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছিলেন মুহাম্মদ সেলিম । এবার বাম-কংগ্রেসের জোটের প্রধান বাধা হচ্ছে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রটি; যেহেতু সিপিএমের প্রার্থী গতবার জয়ী হয়েছে সুতরাং এবার হিসেব মত সিপিএমকেই আসনটি ছাড়াতে হয় । কিন্ত কংগ্রেস ওই দুটি আসন ছাড়তে নারাজ ।  আর এতেই যারপরনাই ক্ষুব্ধ সিপিএম সাংসদ মুহাম্মদ সেলিম।  তিনি জি ২৪ ঘণ্টা ডিজিটালে সাক্ষাৎকার  দিতে গিয়ে সেই ক্ষোভের সঙ্গে বলেছেন ,’বিজেপি ও তৃণমূলের হাতে তামাক খেয়ে এসব করা হচ্ছে। এরা দুই দলের হাত শক্ত করছে। জেতার পর হয়তো কংগ্রেসেও থাকবে না”।

মহম্মদ সেলিমের কটাক্ষ, অনেকের কাছে গতবার আমার জেতাটাই অপরাধ হয়ে গিয়েছে। সব শিয়াল এক হয়ে বলছে, সেলিমকে সংসদে যেতে দেওয়া যাবে না। এই কটাক্ষের নিশানায় কে? সেটাই এখন আস্ত ধাঁধা। দীপা দাশমুন্সি নাকি দলের কোনও নেতাকে খোঁচা দিলেন সেলিম? সেলিম মনে করিয়ে দেন, সমঝোতার প্রাথমিক শর্ত জেতা আসনে প্রার্থী দেওয়া হবে। ব্যক্তি স্বার্থকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

দিল্লিতে বুধবার রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকে সোমেন মিত্র স্পষ্ট জানিয়েছেন, মুর্শিদাবাদ ও রায়গঞ্জ আসন কোনওভাবে ছাড়া যাবে না। ওই দুটি আসনেই কংগ্রেসের জেতার সম্ভাবনা বেশি। সিপিএমের সংগঠন ওখানে আগের মতো আর নেই। দরকার হলে ৪২টি আসনেই প্রার্থী দেবে কংগ্রেস।সূত্রের খবর, কংগ্রেসের এমন আবদার মানতে নারাজ সিপিএম। দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি মনে করেন, জেতা আসন কংগ্রেসকে ছেড়ে দিল ধাক্কা খাবে কর্মীদের আত্মবিশ্বাস।  ২০১৪ সালে রায়গঞ্জে জিতেছিলেন সিপিএমের মহম্মদ সেলিম। স্বাভাবিকভাবেই তিনিই এবার ওই আসনের প্রার্থী হবেন।

 

 

 


শেয়ার করুন
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment