কলকাতা বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

জীবনানন্দ সভাগৃহে উদযাপিত হলো উত্তর কোলকাতা বাংলাভাষা চর্চাকেন্দ্রের আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলকাতা:একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সচেতন বাঙালির আত্মশুদ্ধির দিন।মাতৃভাষার জন্য বীর শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের দিন।গ্রাম,শহর,মফ:স্বল-সব বাঙালির মাতৃভাষার প্রতি আনুগত্য প্রকাশের দিন।তাই উত্তর কোলকাতা বাংলাভাষা চর্চাকেন্দ্রও গত ২৪ ফেব্রুয়ারি  রবিবার বাংলা অকাদেমির জীবনানন্দ সভাগৃহে একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে সশ্রদ্ধায় উদযাপন করল আন্তর্জাতিক সাহিত্য উৎসব-২০১৯।আলোচনা,গান,আবৃতি,গুণিজন সম্মাননায়  সাজানো ছিল এদিনের উৎসব। ইদানীং নাট্যগোষ্ঠীর শিল্পীবৃন্দের পরিবেশিত সূচনা সংগীতের পর  নির্ধারিত আলোচনা এবং গুণিজন সংবর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংস্থার সভাপতি জয়ন্ত রসিক।
আমন্ত্রীত অতিথির আসন গ্রহন করেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আব্দুস সামাদ,এশিয়াটিক হিউম্যান রাইটস সোসাইটির সর্বভারতীয় সভাপতি তাপস চ্যাটার্জী এবং পুরুলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক গৌরী শঙ্কর নাগ।এদিন বাংলা ভাষা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য মানপত্র,স্মারক,পুরস্কারে সংবর্ধিত হন ডা. লহরী বড়াল চক্রবর্তী, রিক্তা মণ্ডল, শেখ আফতাবউদ্দিন সরকার।
এদিন অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে  বিশিষ্ট সাহিত্যিক ড. অমরেন্দ্রনাথ বর্দ্ধন,ড.বিপ্লব মজুমদার এবং বিশিষ্ট গবেষক বদরুদ্দোজা হারুনের উপস্থিতিতে পরিবেশিত একগুচ্ছ গান,কবিতা ও শ্রুতিনাটক শ্রোতাদের মুগ্ধ করে দেয়।সংগীতে অংশগ্রহনকারি শিল্পীরা ছিলেন সবিতা বেগম, প্রলয় দাশগুপ্ত,সোমা মুখোপাধ্যায়,লিলিমা দাস, কৃষ্ণা আঢ্য,চন্দ্রানী কর্মকার, অয়ন দাস, জাহানারা বেগম,সুবল চন্দ্র হালদার, রবীন্দ্রনাথ পাইন ও ভবেশ মণ্ডল।
আবৃতি ও স্বরচিত কবিতা পাঠে ছিলেন শ্রাবনী পণ্ডিত,অশোক কুমার পান্ডে,যুথিকা পান্ডে, সোমা মুখোপাধ্যায়, অপর্না হালদার, নুপুর লোধ,শর্মিষ্ঠা মাজি,অমর কুমার দাস,ড. আশিষ কুমার নন্দী,সবিতা চ্যাটার্জী,পাপিয়া দে(দাস),সাহানা জামান,ড. মনোরমা পোল্ল্যে মণ্ডল ও  ড. রুপালি বিশ্বাস।এদিন শ্রুতি নাটকে অংশ নেন তনুশ্রী আইরিন,মোহাম্মদ আল্লারাখা, নিতাই সরকার ও রঞ্জনা সরকার।
অনুষ্ঠানে একুশের ফেব্রুয়ারি আগেরদিন রাতে ঢাকায় বিধ্বংসি অগ্নিকান্ডে মৃতদের আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট মৌনব্রত পালন করা হয়।এবং এই শোকার্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি মর্মস্পশী বক্তব্য পেশ করেন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব বদরুদ্দোজা হারুন। বিবিধ কার্যসুচির এদিনের অনুষ্ঠানটির  সুচারুভাবে পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক গল্পকার শেখ আব্দুল মান্নান।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment