দেশ 

টেটের প্রশ্নপত্র ভুলের জের ; সব প্রার্থীর নম্বর বাড়ানোর আর্জি গ্রহণ সুপ্রিম কোর্টের; মামলা শেষ না হওয়া অবধি প্রাথমিকে নিয়োগ স্থগিত . নির্দেশ শীর্ষ আদালতের

শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেট পরীক্ষায় কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর ভুল ছিল বলে ইতিমধ্যে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিসন বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছিল , বিশেষঞ্জ কমিটির রিপোর্টের ভিত্তি । সেই সঙ্গে মামলাকারীদের সবাইকে ওই ভুলের জন্য নম্বর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট । এর ভিত্তিতে কেউ মেধা তালিকায় স্থান পেলে তাকে দ্রূত নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিসন বেঞ্চ । সেই মত অনেকেই প্রাথমিকে নিয়োগও পেয়ে যান । কিন্ত সেবার মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২০ লাখের মত । শুধু মামলাকারীরা কেন ? সব প্রার্থীর ক্ষেত্রেই এই নির্দেশ কার্যকরী করার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিসন বেঞ্চে এক পরীক্ষার্থী আবেদন করে । কিন্ত কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিসন বেঞ্চ জানিয়ে দেয় , এই মামলাটি সিঙ্গেল বেঞ্চে করতে হবে । তারপর ডিভিসন বেঞ্চে আসতে হবে বলে মামলাটি খারিজ করে দেয় ।

ডিভিসন বেঞ্চের এই রায়ের পর ওই পরীক্ষার্থী সরাসরি সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করে । আজ সুপ্রিম কোর্ট সেই মামলা গ্রহণ করে রাজ্য সরকারকে বক্তব্য জানাতে বলেছে । মামলাকারীর দুই আইনজীবী আবু সোহেল এবং অতরূপ ব্যানার্জি আজ সুপ্রিম কোর্টে এই বিষয়ে সওয়াল করেন। পরে আইনজীবী আবু সোহেল বাংলার জনরবকে বলেন ,আমাদের আবেদন খুবই স্পষ্ট । প্রশ্নপত্র ভুলের জন্য পরীক্ষার্থীরা দায়ী নন , দায়ী হল সরকার । তাই শুধু মামলাকারীদেরকে ওই ভুলের নম্বর কেন যোগ করা হবে । যোগ করতে হলে সব পরীক্ষার্থী অর্থাৎ ২০ লক্ষ পরীক্ষার্থীর সকলকেই এই নম্বর দিতে হবে । আবু সোহেল বলেন , সুপ্রিম কোর্ট আমাদের আবেদন গ্রহণ করেছে এবং সরকারকে চার সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি কী ? আর এই সময়কালে সরকার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে কোনোরূপ পদক্ষেপ নিতে পারবে না । মামলা না মেটে পর্যন্ত প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়াতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত ।


শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment