কলকাতা 

পদের লোভে নয়, সমাজসেবা করার জন্যই বিজেপিতে যোগ দিয়েছিঃ নাজিয়া এলাহি খান (ফাইল চিত্র)

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেখ মিজানুর রহমান

ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ছিল সমাজ সেবা করার। মহিলা থেকে শুরু করে সমাজের দরিদ্র, পীড়িত, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করাই আমার মূল লক্ষ্য। কিন্তু রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পাশে থেকেও সেসব কাজ করতে পারছিলাম না আমি। সমাজসেবামূলক কাজের ক্ষেত্রে নানান দিক থেকে, বিভিন্নভাবে বাধা আসছিল। তাই বাধ্য হয়েই তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছি। দল পরিবর্তনের প্রায় পাঁচ মাস পর ‘বাংলার জনরব’ প্রতিনিধির কাছে এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বিজেপি নেত্রী তথা আইনজীবী নাজিয়া এলাহী খান।

নাজিয়া বলেন, ‘জাকারিয়া স্ট্রিট, কলাবাগান সহ বড় বাজার এলাকার মুসলিম অধ্যুষিত এলাকাগুলিতে আমি সংখ্যালঘুদের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন রকম সমাজ সেবামূলক কাজ করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু কাজ শুরু করার কয়েকদিনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসের এক বিধায়ক ও তার স্বামী আমাকে কাজ করতে বাধা দেন। তাদের বক্তব্য ছিল, তোমাকে এখানে কোনও ধরনের সমাজসেবামূলক কাজ করতে দেওয়া হবে না। কাজ করতে চাইলে জয়নগরের কোনও গ্রাম্য এলাকায় গিয়ে কাজ করুন।’ নাজিয়ার বক্তব্য, এবিষয়ে দলের সর্বোচ্চ নেতৃত্বস্তরে জানানো হলেও অভিযুক্ত বিধায়ক ও তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি দল। যার ফলেই দল পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিই। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর সমাজসেবামূলক কাজ করতে আমার কোন অসুবিধা হচ্ছে না। স্বচ্ছ ভারত মিশন, উজালা যোজনা সহ কেন্দ্রীয় সরকারের যাবতীয় প্রকল্প ও মুসলিমদের জন্য  নানা কাজ করতে পারছি আমি। এই সমস্ত কাজ করতে গিয়ে কোন অসুবিধার সম্মুখীন হলে বা কোথাও আটকে গেলে আমি সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অফিসে চিঠি পাঠাচ্ছি। আমার কাছে তার উত্তর আসছে, এবং যাবতীয় সমস্যার সমাধান হচ্ছে। কিন্তু তৃণমূলে থাকাকালীন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে নানা সমস্যা নিয়ে অজস্র চিঠি পাঠানো হলেও কোনওদিন তাঁর দফতর থেকে কোনও উত্তর আসেনি।

প্রায় পাঁচ মাস আগে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন নাজিয়া এলাহি খান। কিন্তু এখনও পর্যন্ত দলের কোনও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নেই তিনি। এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে নাজিয়ার সটান জবাব, আমি পদের লোভে বিজেপিতে যোগ দিই নি। মূলত সমাজ সেবামূলক কাজ কর্ম করার জন্যই বিজেপিতে যোগ দিয়েছি। এই দলে যোগ দেওয়ার পর থেকে দিব্যি কাজ করতে পারছি। কিন্তু যদি দেখতাম বিজেপিতে যোগ দেয়ার পরেও আমি জনগণের জন্য কোনও কাজ করতে পারছি না, বা কাজে কোনও সমস্যা হচ্ছে, তাহলে দিন কয়েকের মধ্যেই আমি বিজেপিও ছেড়ে দিতাম। তবে দলের তরফে সংখ্যালঘু মোর্চার কোনও দায়িত্ব তাঁকে দেওয়া হলে  তা পালন করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন নাজিয়া।

 


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment