দেশ 

কাশ্মীরিদের নিরাপত্তা দিতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট

শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দেশের বিভিন্ন জায়গায় বসবাসকারী কাশ্মীরিদের যাতে নিরাপত্তা কোনো ভাবে বিঘ্নিত না হয় এবং তাদেরকে  হেনস্থা করা যাবে না বলে সুপ্রিম কোর্ট কড়া নির্দেশ জারি করেছে । প্রধান বিচারপতি এই ব্যাপারে কেন্দ্র এবং রাজ্যগুলিকে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন ।

কাশ্মীরিদের যাতে কোনো ভাবে সামাজিক বয়কট  করা না হয় কিংবা অহেতুক আক্রমণের শিকার না হয়, সেই দিকটা দেখার নির্দেশ কেন্দ্রের পাশাপাশি দশটি রাজ্যকে দিয়েছে শীর্ষ আদালত। এই দশটি রাজ্য হল, কাশ্মীর, উত্তরাখণ্ড, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, বিহার, মেঘালয়, ছত্তীসগঢ়, পশ্চিমবঙ্গ, পঞ্জাব এবং মহারাষ্ট্র।

পুলওয়ামা হামলার পর দেশের বিভিন্ন প্রান্তে হামলার শিকার হচ্ছেন কাশ্মীরিরা। এই নিয়েই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিলেন আইনজীবী তারিক আজিব।

কাশ্মীরিদের ওপরে হামলার পাশাপাশি মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায়ের একটি টুইটেও দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য আবেদন করেন তিনি। বিতর্কিত সেই টুইটে কাশ্মীরকে সামাজিক ভাবে বয়কট করার ডাক দিয়েছিলেন তথাগতবাবু।

উল্লখ্য, স্বঘোষিত গোরক্ষকদের তাণ্ডব থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য গত বছর রাজ্যগুলিকে নোডাল অফিসার নিয়োগ করার নির্দেশ দিয়েছিল শীর্ষ আদালত। সেই অফিসারদের ওপরেই নতুন দায়িত্ব দিয়েছে আদালত। কাশ্মীরিরা যাতে কোনো ভাবে হামলার শিকার না হন, সেটা দেখার দায়িত্ব এই অফিসারদের।

সেই সঙ্গে নির্দেশে আরও বলা হয়েছে, “কাশ্মীরিদের যে হেনস্থা ব হামলা করবে তাদের বিরুদ্ধে তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য রাজ্যগুলির মুখ্যসচিব, ডিজিপি এবং দিল্লির পুলিশ কমিশনারের ওপর বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।”

এই নির্দেশের পরে আদালতের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে টুইট করেছেন কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ।

কাশ্মীরিদের ওপরে হামলা আটকাতে সব থেকে প্রথমে এগিয়ে এসেছে সিআরপিএফই। ২৪ ঘণ্টার একটি হেল্পলাইন চালু করেছে তারা। কাশ্মীরিরা কোথাও হেনস্থার শিকার হলে, সেই নম্বরে যোগাযোগ করতে পারে বলে জানিয়েছে এই কেন্দ্রীয় বাহিনী।


শেয়ার করুন
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment