কলকাতা 

সিপিএমের প্রাক্তন নেতা লক্ষণ শেঠকে দলে নিতে আবদুল মান্নানের আপত্তি কেন ? প্রশ্ন সোমেন মিত্রের ঘনিষ্ঠ অনুগামী সরদার আমজাদ আলীর

শেয়ার করুন
  • 64
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরি : ১৫ ফেব্রূয়ারি পূর্ব মেদিনীপুরের এক সময়কার বেতাজ বাদশা সিপিএম নেতা লক্ষণ শেঠ কংগ্রেসে যোগ দেবেন বলে কলকাতায় পৌছে গিয়েছিলেন । এমনকি তাঁর প্রায় ২৫০০ অনুগামী লক্ষণ শেঠের সঙ্গে কংগ্রেসে ওই দিন যোগ দেওয়ার জন্য বাস ভাড়া করে কলকাতায় রওনা হয়েছিল ।

কিন্ত শেষ মূহুর্তে বিরোধী দল নেতা আবদুল মান্নান এবং সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যের আপত্তিতে লক্ষণ শেঠ ওই দিন কংগ্রেসে যোগ দিতে পারেননি । তা নিয়ে প্রদেশ কংগ্রেসের মধ্যে অন্তঃবিরোধ তীব্র আকার ধারন করেছে । এ প্রসঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত এবং প্রদেশ কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক আইনজীবী সরদার আমজাদ আলী বাংলার জনরবকে এক বিস্ফোরক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ।

সেখানে তিনি অভিযোগ করেছেন আবদুল মান্নান ও প্রদীপ ভট্টাচার্যরা সিপিএম ও তৃণমূলের সঙ্গে যোগসাজশ করে লক্ষণ শেঠকে কংগ্রেসে যোগ দিতে দিচ্ছেন না । তিনি আরও বলেন, পূর্ব মেদিনীপুরের অধিকারী পরিবারের সঙ্গে রাজনৈতিক লড়াই করার একমাত্র ক্ষমতা রাখেন লক্ষণ শেঠ । তাই যাতে কংগ্রেস শক্তিশালী না হয় , তার জন্যই এঁরা তাঁর যোগদানে বাধা দিচ্ছেন ।

বাধা দিচ্ছেন কে ? আবদুল মান্নান । তিনি এককভাবে হুগলী জেলার দায়িত্বে থাকার পরও এক সময়কার কংগ্রেসের গড় হুগলী এখন তৃণমূলের গড়ে পরিণত হয়েছে । আর মান্নান সাহেবকে জিততে সিপিএমের সাহায্য নিতে হয় । অন্যদিকে বর্ধমানের দায়িত্ব রয়েছেন সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য সেই জেলাও এখন তৃণমূলের রমরমা । কংগ্রেস সাইনবোর্ডে পরিণত হয়েছে । এই ইস্যুতে সরদার আমজাদ আলী সরাসরি তোপ দেগেছেন রাজ্য কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক ও এআইসিসি-র সাধারন সম্পাদক গৌরব গগৈ-এর বিরুদ্ধেও ।

তিনি বলেন , লক্ষণ শেঠ প্রসঙ্গে গৌরব গগৈকে ভুল বোঝানো হয়েছে । গৌরব মাত্র কয়েকদিন বাংলায় এসেছেন এর মধ্যে তিনি বাংলার নাড়ি-নক্ষত্র বুঝে গেছেন এটা ভাবলে চলবে না ।

সরদার আমজাদ আলী আরও বলেন , গৌরব কেন একজন পীরসাহেবের ছেলের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন ? তাহলে তিনি কী এবার কপিল মুনির আশ্রমে যাবেন কিংবা তারাপীঠে কেন যাবেন না ? কেন যাবেন না রামকৃষ্ণ মিশন কিংবা ভারত সেবা সংঘে ? তাকে যেতে হবে । মনে রাখতে বাংলার মুসলমান সমাজে প্রতিটি জেলাতেই একটি দুটি করে পীর সাহেব আছেন , শুধু ফুরফুরা কেন ? এদের কাছে কেন যাবেন না ? তিনি আরও বলেন ত্বহা সিদ্দিকী শুধু মাত্র সুন্নি সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তি । তাহলে তিনি শিয়া সম্প্রদায়ের কাছে কেন যাবেন না ? তিনি আরও বলেন আমাদের মনে রাখতে হবে যে , সোমেন মিত্রের নেতৃত্বে মুসলিমরা দলে দলে কংগ্রেসে যোগ দিচ্ছে সেখানে কোনো বিশেষ পীরের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই । কারণ কংগ্রেস দল ধর্মনিরপেক্ষ আদর্শে বিশ্বাস করে , সেই বিশ্বাস থেকে সরে গেলে দলের বিপদ বাড়বে ।


শেয়ার করুন
  • 64
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment