কলকাতা 

কলকাতার শিশির মঞ্চে অনুষ্ঠিত হল আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মিলন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেখ আব্দুল মান্নান,কলকাতা: গত ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে কলকাতা শিশির মঞ্চে উদ্বোধন হলো আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মিলন ২০১৯। বিশিষ্ট কবি সুবোধ সরকারের  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করেন প্রখ্যাত গুজরাটি কবি সিতাংশু যশচন্দ্র। দুদিনব্যাপি এই সাহিত্য সম্মিলনের উদ্বোধনী সভায় আমন্ত্রীত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের কবি প্রণব কুমার মুখোপাধ্যায়, পবিত্র মুখোধ্যায়, ড.দেবেন্দ্র কুমার দেবেশ, উড়িষ্যার ড.মিহির কুমার সাহু, স্পেনের ফ্রানসিসকো মুনোজ সোলার, এমেলি পুইগ ভিলারো, রাশিয়ার শাখনোজা রোজিকোভা, ইউনাইটেড স্টেটস অব আমেরিকার বিজলি হ্যামিলটন, ফ্রান্সের আমিরুল আরহাম, চেক রিপাব্লিকের পাপিয়া ঘোষাল বাউল, পাবেল কাসাই, ফ্লোরিডার অশোক কর এবং বাংলাদেশের বিশিষ্ট কবি মহম্মদ নুরুল হুদা, মজিদ মাহমুদ ও মাহবুব সাদিক। সম্মিলন উদ্বোধনের আগে সম্প্রতি প্রয়াত কবি নীরেন চক্রবর্তী, সাহিত্যিক সুনীল   গঙ্গোপাধ্যায়, আফসার আমেদ,কার্তিক মোদক, প্রদীপ ভট্টাচার্য প্রমুখের  আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নীরবতার মধ্যে দিয়ে শোকস্মৃতি তর্পন করা হয়।
এদিন সংস্থার  সভাপতি  পার্থসারথি গায়েনের প্রাক কথন, অধীরকৃষ্ঞ মণ্ডলের সম্পাদকীয়  প্রতিবেদন এবং শিল্পী সঙ্গীতা ঠাকুরের পরিবেশিত ‘মহাবিশ্বে মহাকাশে মহাকালের মাঝে’ সূচনা সঙ্গীত দিয়ে   শুরু হওয়া  তাৎপর্যপূর্ণ উদ্বোধনী সভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য পেশ করেন উদ্বোধক সিতাংশু যশচন্দ্র।তাঁর বক্তব্য উঠে আসে পৃথিবীর সব কবিই আপোষহীন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে গর্জে ওঠে সব কবির কলম।
তিনি বলেন সমস্ত ভাষার কবিতাই সবাইকে এক করার বার্তা দেয়।সভাপতির ভাষণে কবি সুবোধ সরকার উদ্বোধক সিতাংশু যশচন্দ্রের ভূয়শি প্রশংসা করে বলন- সিতাংশু ইজ এ মডার্ণ সেন্ট অব ইণ্ডিয়া’।তিনি আরো বলেন অনুবাদের মাধ্যমে কেমন করে বিদেশি কবি পাবলো নেরুদা বাঙালি কবির মর্যাদা লাভ করেছেন। এদিন সম্মিলনের প্রথম অধিবেশন শেষ হয় পাপিয়া  ঘোষাল বাউলের জনপ্রিয় গান ‘ আমি হৃদমাঝারে রাখবো ছেড়ে দেবো না’ দিয়ে।
এদিন সুবোধ সরকারের উপস্থাপনায় সময়োপযোগি বিষয় Poet  as Voice of global protest ( আন্তর্জাতিক প্রতিবাদের কণ্ঠ  কবি) কেন্দ্রিক আলাপ আলোচনার  দ্বিতীয় অধিবেশন   মনোগ্রাহী হয়ে ওঠে বক্তা মহম্মদ নুরুল হুদা, ফ্রানসিসকো মুনোজ সোলার এবং এমেলি পুইগ ভিলারোর প্রাঞ্জল বক্তব্যে।
এদিন নির্ধারিত অন্যান্য অধিবেশনে আয়োজিত বিভিন্ন কবির কবিতা পাঠের পাশাপাশি  সৈয়দ হাসমত জালালের সভাপতিত্বে এবং অরুপম মাইতির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত  বিভিন্ন ভাষার কবিতা পাঠের পর্বটি বেশ উপভোগ্য হয়ে উঠেছিল । এই পর্বে অংগ্রহনকারী কবিরা ছিলেন হিন্দিতে ড.অভিজ্ঞাত, উড়িয়াতে ড.বীণাপাণি দেবতা, ড.মিহির কুমার সাহু, মৈথিলিতে বিনয়ভূষণ ঠাকুর, ফারসিতে আমিরুল আরহাম, বাংলায় নাসিমা রহমান শিউলি, মাহবুব সাদিক, মাহমুদ কামাল, মাজিদ মাহমুদ এবং মহম্মদ নুরুল হুদা প্রমুখ।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment