জেলা 

পুলিশ মন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে কেউ অন্যায় করে পার পেয়ে যাবে না। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে যাচ্ছি, যারা ভাবছেন অপরাধ করে দিল্লির নেতাদের হাত ধরে রক্ষা পাবেন, তাঁরা শুনে রাখুন, কেউ পার পাবেন না, প্রত্যেককে ঘাড় ধরে টেনে এনে শ্রীঘরে ঢোকানোহবে; দলীয় বিধায়ক খুনে নাম না করে মুকুল রায় ও বিজেপিকে তোপ অভিষেকের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : পুলিশ মন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফলে কেউ অন্যায় করে পার পেয়ে যাবে না। আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে যাচ্ছি, যারা ভাবছেন অপরাধ করে দিল্লির নেতাদের হাত ধরে রক্ষা পাবেন, তাঁরা শুনে রাখুন, কেউ পার পাবেন না, প্রত্যেককে ঘাড় ধরে টেনে এনে শ্রীঘরে ঢোকানো হবে অভিষেক বলে হুঁশিয়ারি দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের যুব নেতা ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় । তিনি সোমবার পূর্ব ঘোষণা মত গুলিবিদ্ধ হয়ে খুন হওয়া বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাসের বাড়িতে যান । সেখানে গিয়ে নিহত বিধায়কের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন । তারপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিধায়কের মৃত্যুর জন্য সরাসরি বিজেপির দিকে আঙুল তোলেন ।

তিনি  সাংবাদিকদের  স্পষ্ট জানান , কাউকে ছেড়ে দেওয়া হবে না। দিল্লিতে লুকিয়েও কেউ রক্ষা পাবে না। তিনি বলেন, বিজেপি এই খুনের ঘটনায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের তত্ত্ব হাজির করতে চাইছে। কিন্তু যাঁরা ধরা পড়ল তাঁরা কোন পার্টি করেন? আর এখানে যদি গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব থাকে তবে অপর গোষ্ঠীর নেতার নাম কী, প্রকাশ্যে জানাক বিজেপি। আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি, এখানে কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই।তিনি বলেন, রাস্তায় সবাই প্ল্যাকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে রয়েছে। প্ল্যাকার্ডে লেখা অভিজিৎ পুণ্ডরীর শাস্তি চাই। তিনি কে? তিনি একজন আরএসএসের লোক। তারপরও বলা হচ্ছে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে খুন। এখানে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, তারা বিধায়ক হত্যাকাণ্ডে জড়িত। আমি কথা দিয়ে যাচ্ছি, কোনও অপরাধী পার পাবেন না।

অভিষেক বলেন, আমি দুর্নীতি করব, আর দিল্লির বাবুদের পা ঝুলে বেঁচে যাব, আমি খুন করব আর দিল্লির নেতারা বাঁচাবেন, তা হবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশ কান ধরে টেনে এনে শ্রীঘরে ঢোকাবে।

তবে এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের নাম না নিয়ে ঘুরিয়ে তাঁকে হুঁশিয়ারি দিলেন বলের ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে । তিনি এদিন দিলীপ ঘোষকেও তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন ।  তিনি বলেন, দিলীপবাবুরা ভাষণ দিচ্ছেন, অনাথ করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন। আমি প্রশ্ন করতে চাই, তাঁদের ভাষণের সঙ্গে এই কাজের মিল রয়েছে কি না? মানুষ এর জবাব দেবে। চ্যালেঞ্জ করে যাচ্ছি, এই কেন্দ্রে ভোট আরও বাড়বে। তৃণমূল আরও সঙ্ঘবদ্ধ হবে। আমরা ঘরে ঘরে সত্যজিৎ বিশ্বাস তৈরি করব।

 

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment