দেশ 

বাঙালি হওয়ার কারণে অসমে গিয়ে খুন হলেন পাঁশকুড়ার দুই শ্রমিক ; বিজেপি এনআরসি নিয়ে প্রচারের ফলে এই ঘটনা ঘটেছে দাবি শুভেন্দুর

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : পাঁশকুড়ার চারজন অসমে রাজমিস্ত্রীর কাজে গিয়েছিলেন । সেখানে গিয়ে কাজে গিয়ে  বাঙালি এবং মুসলিম হওয়ার কারণে খুন হল  দুই শ্রমিককে। ওই দুই শ্রমিকের  নাম শেখ ইদ্রিস আলি (৫২) ও শেখ মহম্মদ (৪৩)। হামলায় আরও দুজন জখম হন। পরিবারের পক্ষ থেকে  অভিযোগ করা হয়েছে, বাঙালি হওয়ার কারণেই তাঁদের উপর হামলা চালানো হয়।

শেখ ইদ্রিস ও শেখ মহম্মদের বাড়ি পাঁশকুড়া থানা এলাকায়। তারা দীর্ঘদিন ধরে অসমের তিনসুকিয়া জেলায় রাজমিস্ত্রির কাজ করত। পরিবারের দাবি, আজ সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ তাদের ফোন করে জানানো হয়, শেখ মহম্মদ ও শেখ ইদ্রিসকে গলার নলি কেটে খুন করা হয়েছে। শেখ মহম্মদের দাদা আহমেদ আলি বলে, “দাদারা চারজন রান্না করছিল। সে সময় কয়েকজন এসে দাদাদের কোথায় বাড়ি জানতে চায়। পশ্চিমবঙ্গ বলতেই দুষ্কৃতীরা দুজনের গলার নলি কেটে দেয়। অপর দুজনকে জখম করে। আপাতত যা জানতে পেরেছি, তাতে মনে হচ্ছে বাঙালি হওয়ার জন্যই খুন করা হয়।” একই অভিযোগ শেখ ইদ্রিসের ভাই হামিদুল খানের। তার কথায়, “বাঙালি মুসলিম জানার পর দাদাসহ চারজনের উপর হামলা চালানো হয়।”

রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী মৃতদেহগুলি আনার ব্যবস্থা করছেন বলে জানা গেছে । তিনিও সংবাদ-মাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন , বিজেপি জাতীয় নাগরিক পঞ্জী নিয়ে যে প্রচার চালাচ্ছে তার ফলেই এ অঘটন ঘটছে । ওরা যেহেতু বাঙালি তার পর মুসলিম এ কথা জানার পরই তাদের উপর হামলা করা হয়েছে । এটা বিজেপি ভূল নীতির জন্যই ঘটেছে ।
অন্যদিকে স্থানীয় জেলা পরিষদের সদস্য তথা জেলা পরিষদের খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ সিরাজ খান জানিয়েছেন , “বাঙালি বলে দুজনকে গলা কেটে খুন করা হয়েছে। শুভেন্দু অধিকারী দেহ আনার বিষয়টি তদারকি করছেন। প্রশাসনিকভাবে সবরকম সাহায্য করা হবে। অসমের অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয়। বাঙালি দেখলেই খুন করা হচ্ছে।”

পাঁশকুড়া থানার আধিকারিক অজিত কুমার ঝাঁ বলেন, “তিনসুকিয়া থানার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মৃতদেহ ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment